সেই কিশোর আসলে হিন্দু ছিল!

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১০:৪৬ অপরাহ্ণ, আগস্ট ২৩, ২০১৮ | আপডেট: ১০:৪৬:অপরাহ্ণ, আগস্ট ২৩, ২০১৮

‘পাক্কা মুসলমান হুঁ’ বলতে বলতে ভারতের জাতীয় পতাকা ছিঁড়ছে এক কিশোর। পরে সেই যুবককেই আবার মারধর করে জনতা তাকে দিয়ে ‘ভারত মাতা কি জয়’ বলিয়ে নিচ্ছে। কিছুদিন আগে এই দু’টি ভিডিও ভারতের সোশ্যাল মিডিয়ায় আলোড়ন ফেলে দিয়েছিল। তবে সেই কিশোর আসলে হিন্দু। এমন খবর জানিয়েছে কলকাতার আনন্দ বাজার পত্রিকা।

পুলিশের তদন্ত রিপোর্টের বরাত দিয়ে পত্রিকাটি জানায়, ঘটনাটি গুজরাতের সুরাত এলাকার। ভিডিও দু’টি নিয়ে শোরগোলের পরই পুলিশে জানান এলাকার বাসিন্দারা। পরে পুলিশ ওই কিশোর এবং আরও এক জনকে গ্রেফতার করে। তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করেই জানা যায়, ওই কিশোর আসলে হিন্দু। ছোটখাট অনুষ্ঠানে কৌতুক অভিনয় করেন তারা। ভিডিওটি মজা করার জন্যই বানায় ওই দুই কিশোর।

এদিকে নিরাপত্তার স্বার্থে ওই দুই কিশোরের নাম প্রকাশ করতে চায়নি পুলিশ। পুলিশ দু’জনকেই জিজ্ঞাসাবাদের পর সাবধান করে ছেড়ে দিয়েছে। আরও জানা গিয়েছে, প্রথম ভিডিওটি পোস্ট হয় রোহিত সারদানা নামে একটি সর্বভারতীয় চ্যানেলের এক সাংবাদিকের টুইটারে। যদিও সেই অ্যাকাউন্ট তাঁর নিজের নামে নয়, ‘অনুমিশ্রবিজেপি’ নামে। সেই অ্যাকাউন্টের ফলোয়ার রয়েছেন কয়েকজন বিজেপি নেতাও।

উল্লেখ্য, ভারতের স্বাধীনতা দিবসের কয়েক দিন পরে একটি ভিডিওটি পোস্ট হয়। তাতে দেখা যায়, একটি ঘরের মধ্যে ওই কিশোর পতাকা ছিড়ছে। শেষে বলছে, ‘পাক্কা মুসলমান হুঁ’। কয়েকদিন পরে আরেকটি ভিডিও পোস্ট করা হয় যেখানে দেখা যায় জনতা ওই যুবককে মারধর করে তাকে দিয়ে ‘ভারত মাতা কি জয়’ বলিয়ে নিচ্ছে।