কোটা সংস্কার প্রজ্ঞাপনে পাঁচ দফা দাবিতে ছাত্রসমাবেশের ডাক

প্রকাশিত: ৮:৩২ পূর্বাহ্ণ, জুলাই ২২, ২০১৮ | আপডেট: ৮:৩২:পূর্বাহ্ণ, জুলাই ২২, ২০১৮

টিবিটি শিক্ষাঙ্গনঃসরকারি চাকরিতে কোটা সংস্কারের দাবিতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা, শিক্ষক ও ছাত্রীদের লাঞ্ছনার বিচার, গ্রেপ্তারকৃত শিক্ষার্থীদের নিঃশর্ত মুক্তি, নিরাপদ ক্যাম্পাস এবং বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের পাঁচ দফার আলোকে কোটা সংস্কারের প্রজ্ঞাপনের দাবিতে ছাত্রসমাবেশের ডাক দিয়েছে আন্দোলনকারীরা।

রোববার (২২ জুলাই) বিকেল ৩টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি সংলগ্ন সন্ত্রাসবিরোধী রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে এ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হবে। এতে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়-কলেজের শিক্ষার্থীদের পাশাপাশি শিক্ষকরাও অংশ নিবেন বলে জানা গেছে।

কোটা সংস্কার আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের প্ল্যাটফর্ম বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের যুগ্ম-আহবায়ক লুৎফুন্নাহার লুমা বলেন, আমাদের ছাত্রসমাবেশে সকল কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা অংশ নেবে।

সমাবেশে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের হামলা না করার অনুরোধ জানিয়ে তিনি বলেন, কোটা সংস্কার আন্দোলনের প্রথম থেকেই আমরা আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর প্রতি আন্তরিক ছিলাম।

আমরা যখন তাদেরকে ফুল দিয়েছিলাম, তার বদলে তারা আমাদের ওপর টিয়ারশেল নিক্ষেপ করেছে। আমরা এখনও তাদের ওপর আস্থাশীল। কারণ আমরা তো তাদেরই ভাই-বোন। তাদের প্রতি আহ্বান থাকবে, শান্তিপূর্ণ কর্মসূচিতে তারা যেন অতর্কিত হামলা না করে।

ছাত্রলীগের হামলার বিষয়ে তিনি বলেন, এর আগে শান্তিপূর্ণ কর্মসূচিতে যারা হামলা চালিয়েছে, তারা যে নতুন করে আবার আমাদের সমাবেশে হামলা করবে না, তার কোন নিশ্চয়তা নেই।

তিনি আরও বলেন, আমরা এখানে সবাই সাধারণ ছাত্র-ছাত্রী। রাজনৈতিক ব্যানারে আমরা কেউ আসিনি। প্রথম দিকে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা আমাদের সঙ্গে ছিলো। এমনকি এ আন্দোলনের আহ্ববায়কও ছাত্রলীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত।

কিন্ত জানি না কি কারণে পরবর্তীতে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা আমাদের সঙ্গ ত্যাগ করে আমাদের ওপরই হামলা চালায়। তাদেরকে বলবো, আপনারা আমাদের ভাই-বোন, এ আন্দোলনে আমরা আপনাদেরকে পাশে চাই।

তিনি বলেন, কোটা সংস্কার আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের মুক্তির দাবিতে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়-কলেজে শিক্ষার্থীরা ক্লাস বর্জন করছে, এতে আমাদেরই ক্ষতি হচ্ছে। আমরা চাই না এরকম ক্ষতির সম্মুখীন হতে।

আমরাও পড়ার টেবিলে ফিরে যেতে চাই। আর আমাদের যে ট্যাগ দেয়া হচ্ছে সেগুলো যেন আর কেউ না দিতে পারে সেজন্য দ্রুতই কোটা সংস্কার বা বাতিলের প্রজ্ঞাপন জারি করা উচিৎ।

এদিকে বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের আরেক যুগ্ম আহবায়ক আতাউল্লাহ বলেন, আমরা আমাদের এ সমাবেশে শিক্ষকদেরও আমন্ত্রণ জানিয়েছি।

তিনি আরো বলেন, পাঁচ দফার আলোকে কোটা সংস্কারের প্রজ্ঞাপন, আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা ও শিক্ষক-ছাত্রীদের লাঞ্ছনাকারীদের বিচার, গ্রেপ্তারকৃত শিক্ষার্থীদের নিঃশর্ত মুক্তি এবং নিরাপদ ক্যাম্পাসের দাবিতে আমরা এ ছাত্রসমাবেশ করবো।