স্কুল-কলেজ ফাঁকি দিয়ে অাড্ডাঃকুমিল্লায় দুই শিক্ষার্থীকে জরিমানা, পরে মুচলেকায় মুক্ত

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১২:১৬ পূর্বাহ্ণ, জুলাই ১৩, ২০১৮ | আপডেট: ১২:৩৮:পূর্বাহ্ণ, জুলাই ১৩, ২০১৮

কুমিল্লার ধর্মসাগরপাড়ে স্কুল-কলেজ ফাঁকি দিয়ে আড্ডা-মারামারি ও ইভটিজিংয়ের ঘটনা বেড়ে যাওয়ায় মোবাইল কোর্টের (ভ্রাম্যমাণ আদালত) ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে ধর্মসাগরপাড়ে পরিচালিত মোবাইল কোর্টে বেশ কজন শিক্ষার্থীকে মুচলেকাসহ অর্থদণ্ড প্রদান করা হয়। এ ছাড়াও খাদ্যের অতিরিক্ত দামের কারণে জরিমানা করা হয়েছে কয়েকটি দোকানকে।

কুমিল্লা জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা যায়, মঙ্গলবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে কুমিল্লা জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এ কে এম সাইফুল আলম ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. ফজলে এলাহীর সমন্বয়ে ধর্মসাগর পাড় এলাকায় মোবাইল কোর্ট পরিচালিত হয়। এ সময় স্কুল-কলেজ ফাঁকি দিয়ে সাগর পাড় ও পার্কে বসে আড্ডা দেয়ার অপরাধে ৪ শিক্ষার্থীকে আটক করা হয়।

পরে তারা ‘আর এমন হবে না’- শর্তে মুচলেকা দিয়ে ছাড়া পান। এ ছাড়াও পাবলিক প্লেসে ধূমপান করার অপরাধে ২ দু’জন শিক্ষার্থীকে অর্থদণ্ড প্রদান করা হয়। অপরদিকে খাদ্যদ্রব্যের অতিরিক্ত দাম রাখার কারণে ধর্মসাগরপাড়ে চাচা চটপটিকে ১০ হাজার টাকাসহ অন্য আরো দুটি প্রতিষ্ঠান মিলিয়ে মোট ১১ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়।

বিষয়টি নিশ্চিত করে কুমিল্লা জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এ কে এম সাইফুল আলম জানান, কুমিল্লা জেলা প্রশাসক মহোদয়ের সার্বিক নির্দেশনায় আজ বৃহস্পতিবার আমরা নগরীর ধর্মসাগরপাড়ে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করি। এসময় কয়েকজন শিক্ষার্থীকে জরিমানা ও সতর্ক করা হয়েছে।

এ ধরনের অভিযান অব্যাহত আছে বলে জানিয়েছেন কুমিল্লা জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. ফজলে এলাহী। তিনি বলেন, সুনির্দিষ্ট অভিযোগ পেলেই আমরা সঙ্গে সঙ্গে ব্যবস্থা নিচ্ছি। ভবিষ্যতেও এ ধারা অব্যাহত থাকবে।

এ বিষয়ে জেলা প্রশাসক মো. আবুল ফজল মীর জানান, সম্প্রতি নগরীর ধর্মসাগরপাড়ে শিক্ষার্থীদের আড্ডা, বখাটেদের উৎপাত বেড়ে যাওয়ায় মোবাইল কোর্টের ব্যবস্থা নিয়েছি। তিনি বলেন, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধান ও অভিভাবকরা সচেতন সচেতন হলে শিক্ষার্থীরা ক্লাস ফাঁকি দিয়ে আড্ডা দিতে পারবে না। বখাটেপনাও কমে আসবে।


ad