২৫ বছর ধরে ইসলাম ধর্ম প্রচার করেছি, কখনও হিংসা বা সন্ত্রাসে মদত দেইনি-ডা. জাকির নায়েক

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ৯:৫১ অপরাহ্ণ, জুলাই ১২, ২০১৮ | আপডেট: ৯:৫১:অপরাহ্ণ, জুলাই ১২, ২০১৮
২৫ বছর ধরে ইসলাম ধর্ম প্রচার করেছি, কখনও হিংসা বা সন্ত্রাসে মদত দেইনি-ডা. জাকির নায়েক

২৫ বছর ধরে ধর্মের প্রচার করেছি, কখনও হিংসা বা সন্ত্রাসে মদত দিইনি বলে মন্তব্য করেন জনপ্রিয় ধর্মবেত্তা ডা. জাকির নায়েক।

ডা. জাকির নায়েক ইসলামপ্রিয় মানুষের কাছে বিশ্বজুড়ে বিশেষ করে ভারতীয় উপমহাদেশে সর্বাধিক জনপ্রিয় ইসলামিক ব্যক্তিত্ব। ভারতের ইসলামিক রিসার্চ ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা তিনি। গত ৫২ বছর ধরে তিনি তুলনামূলক ধর্মীয় আলোচনার মাধ্যমে ইসলাম প্রচার করছেন।

ডা. নায়েকের প্রতিষ্ঠানের একটি টেলিভিশন চ্যানেল রয়েছে। পিস টিভি নামের ওই চ্যানেলের মাধ্যমে তিনি ইসলাম ধর্মের বানী প্রচার করতেন।

সম্প্রতি ভারত সরকার তার বিরুদ্ধে সমাজে বিভেদ, হিংসা ছড়ানো এবং সন্ত্রাসে মদত দেয়ার মতো মারাত্মক অভিযোগ উত্থাপন করে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করে।

ডা. নয়েক বর্তমানে মালেশিয়ায় অবস্থান করছেন। মালেশিয়া সরকারও তাকে ভারতের কাছে হস্তান্তর করবে না বলে জানিয়েছে।

অন্যদিকে জাকির নায়ে তার বিরুদ্ধে উত্থাপিত সব অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছেন । তিনি দাবি করেছেন, ‘২৫ বছর ধরে ধর্মের প্রচার করেছি, কখনও হিংসা বা সন্ত্রাসে মদত দিইনি।’

কিন্তু এরই মধ্যে ভারতের এনআইএ তার বিরুদ্ধে চার্জশিট দাখিল করেছে। বাংলাদেশের রাজধানী শহর গুলশনে জঙ্গি হামলার সঙ্গে জাকির নায়েকের নাম জড়িয়ে ভারতের গণমাধ্যমে খবর প্রকাশ করা হয়েছে।

এসব অভিযোগের প্রেক্ষিতে জাকির নায়েক বলেন, ‘আমার বক্তব্যকে বিকৃত করে অভিযুক্ত করা হচ্ছে। বার বার যে কথা বলেছি, সেটাই আবার বলছি- ভালো মানুষ না হলে কখনোই ভালো মুসলিম হওয়া যায় না।

জাকির নায়েককে ভারতের ফেরানোর বিষয়ে মালয়েশিয়া সরকারের সঙ্গে কথা বলেছে দেশটি। কিন্তু জাকির নায়েকের পাশে দাঁড়িয়েছে প্রধানমন্ত্রী ডা. মাহাথির মোহাম্মদ। জাকির নায়েককে সেখানে নাগরিকত্বও দেয়া হয়েছে। পাশে দাঁড়ানোর জন্য মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন ডা. জাকির নায়েক।